ঢাকা, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯, ২ শ্রাবণ ১৪২৭

ভারতীয় ক্লাবকে দুর্দান্ত খেলে হারাল আবাহনী

http://www.prothomalo.com/sports/article/1594117/ভারতীয়-ক্লাবকে-দুর্দান্ত-খেলে-হারাল-আবাহনী
BYক্রীড়া প্রতিবেদক
১৫ মে ২০১৯, ২১:৪১

এএফসি কাপে ভারতের চেন্নাইয়ান এফসিকে ৩-২ গোলে হারিয়েছে আবাহনী লিমিটেড। আবাহনীর পক্ষে গোল করেছেন হাইতিয়ান স্ট্রাইকার বেলফোর্ট, আফগান ডিফেন্ডার মাসি সাইগানি ও মামুনুল ইসলাম এএফসি কাপে দারুণ এক জয় পেয়েছে আবাহনী লিমিটেড। গোল, পাল্টা গোলের ম্যাচে ভারতের চেন্নাইয়ান এফসিকে ৩-২ গোলে হারিয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলার স্বপ্ন জিইয়ে রেখেছে বাংলাদেশের চ্যাম্পিয়নরা।

ম্যাচের সপ্তম মিনিটে গোল করে এগিয়ে গিয়েছিল চেন্নাইয়ান। ম্যান মার্কিং ঠিকমতো না করার খেসারত দেয় আবাহনীর রক্ষণভাগ। ইসাক ভানমালসাওয়ারের কর্নার থেকে উড়ে আসা বলে দূরের পোস্ট থেকে ডান পায়ের শটে বল জালে জড়িয়ে দেন ভিনেথ।

গোল খেয়ে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায় আবাহনী। পুরো ম্যাচটা নিজে হাতে টেনে নিয়ে যান আবাহনীর হাইতিয়ান ফুটবলার কেভিন বলফোর্ট। একের পর এক আক্রমণে চেন্নাইয়ানকে নাজেহাল করে সমতায় ফিরতে অবশ্য আকাশি-নীল জার্সিধারীদের অপেক্ষা করতে হয় ম্যাচের ৬৪ মিনিট পর্যন্ত। বেলফোর্টই গোল করেন। আফগান ডিফেন্ডার মাসি সাইগানির এরিয়াল থ্রু বক্সের মধ্যে বুকে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে গোলটি করেন বেলফোর্ট। ৫ মিনিট পরেই অবিশ্বাস্য ফ্রিকিকে আবাহনীকে এগিয়ে নেন মাসি। বাঁ প্রান্তে বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া ফ্রিকিকটি চেন্নাইয়ান ক্লাবের গোলরক্ষককে ফাঁকি দিয়ে ঢুকে যায় গোলে। ২-১ গোলে এগিয়ে গিয়ে আবাহনী হয়তো একটু গা ছাড়া দিয়ে থাকতে পারে। সে সুযোগে সমতায় ফেরে চেন্নাই খেলার ৭৪ মিনিটে। গোলটি করেন ইসাক।

ম্যাচটি যখন ড্রয়ের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে, ঠিক তখনই ৮৮ মিনিটে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে উপস্থিত আবাহনী সমর্থকদের আনন্দে ভাসিয়ে ৩-২ করেন মামুনুল ইসলাম।

ম্যাচের আগে আবাহনী পরিণত হয়েছিল ছোটখাটো হাসপাতালে। গুরুত্বপূর্ণ চার খেলোয়াড়ের ইনজুরিতে রক্ষণভাগ সাজানোই কষ্ট হয়ে যাচ্ছিল দলটির। আবাহনীর পর্তুগিজ কোচ মারিও লেমোস সেই ধাক্কাটা সামলেছেন বড় রদবদল করে। রাইটব্যাক রায়হান হাসানকে সেন্টারব্যাক খেলিয়ে তাঁর স্থলে প্রথাগত ফরোয়ার্ড সাদ উদ্দিনকে খেলানো হয়েছে রাইটব্যাকে। এই রদবদলেও রক্ষণভাগের ফোকর পূরণ করা সম্ভব ছিল না। তাই রক্ষণভাগকে ছায়া দেওয়ার জন্য প্রথমবারের মতো মামুনুল ইসলাম ও সোহেল রানাকে ‘ডাবল পিভট’ হোল্ডিং মিডফিল্ডার হিসেবে খেলানোর কৌশল বেছে নেন আবাহনী কোচ। বাংলাদেশ জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক মামুনুল তো শেষ মুহূর্তে দুর্দান্ত ভলিতে গোল করে আবাহনীকে জয়ই এনে দিয়েছেন।

এই জয়ে চার ম্যাচ শেষে আবাহনীর পয়েন্ট ৭। তাদের সমান ম্যাচে চেন্নাইয়িনের পয়েন্টও সমান ৭। তবে গোল গড়ে ভারতের ক্লাবটি শীর্ষে। এএফসি কাপের গ্রুপ পর্বে দক্ষিণ এশিয়ার চার ক্লাব খেলছে ‘ই’ গ্রুপে। অন্য দুইটি দল হলো ভারতের মিনার্ভা পাঞ্জাব ও নেপালের মানাং মার্শিয়াংদি। হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে ভিত্তিক লড়াই শেষে একটি দল যেতে পারবে দ্বিতীয় পর্বে।