ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৭
BYখেলা ডেস্ক
১২ জুন ২০১৯, ২৩:১৬

বৈরী আবহাওয়ার জন্য বিশ্বকাপে বারবার পণ্ড হয়ে যাচ্ছে ম্যাচ। ইংল্যান্ডে এই সময়ে বৃষ্টিপাত হয় বেশি, তা সবারই জানা। কিন্তু ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা আইসিসির বৃষ্টি, ম্যাচের সময়সূচি...এসব নিয়ে যেন কোনো চিন্তাই নেই! বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয়তার বিচারে ফুটবলের সঙ্গে ক্রিকেটের তুলনার প্রশ্নই ওঠে না। বিশ্বকাপ ফুটবলের সঙ্গে মেলানো যাবে না ক্রিকেট বিশ্বকাপকেও। তবুও বিশ্বকাপ তো। সে ক্ষেত্রে কীভাবে বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ নির্বাচন করতে হয়, সে জ্ঞানটা বিশ্ব ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার কাছ থেকে নিতে পারে আইসিসি।

২০১৭ সালের ফিফা অনূর্ধ্ব-১৯ ফুটবল বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ ছিল ভারত। টুর্নামেন্ট শুরুর আগে আয়োজক দেশের প্রতিটি ভেন্যুর অতীত আবহাওয়ার রেকর্ড দেখাতে হয়েছে ফিফাকে। পেছনের পাঁচ-দশ বছরের রেকর্ড নয়, গত ত্রিশ বছরে প্রতিটি ভেন্যুর আবহাওয়ার রেকর্ড চেয়েছিল ফিফা। ৯০ মিনিটের খেলা ফুটবল, তা–ও আবার অনূর্ধ্ব-১৭ পর্যায়ের ফুটবল, তবু সদা সতর্ক ফিফা। কিন্তু এবারের ২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ ইংল্যান্ডকে এসব ঝামেলা পোহাতে হয়নি। কারণ ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা আইসিসির বৃষ্টি, ম্যাচের সময়সূচি...এসব নিয়ে যেন কোনো চিন্তাই নেই!

বিশ্বকাপের বয়স মাত্র দুই সপ্তাহে গড়াল। ইতিমধ্যেই তিনটি ম্যাচ ভেসে গেছে বৃষ্টিবাধায়। শ্রীলঙ্কা-পাকিস্তান, ওয়েস্ট ইন্ডিজ-দক্ষিণ আফ্রিকার পর বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার ম্যাচগুলো বৃষ্টির কারণে মাঠে গড়ায়নি। পয়েন্ট ভাগাভাগির মাধ্যমে সুরাহা হয়েছে এই তিন ম্যাচের। এর আগে কোনো আইসিসি টুর্নামেন্টে তিনটি ম্যাচ বাতিল হয়নি।

বৃষ্টির পূর্বাভাস বলছে, সামনের সপ্তাহেও বেশ কয়েকটি ম্যাচ বৃষ্টিতে পণ্ড হতে পারে। ইংলিশ গ্রীষ্মে বৃষ্টি হবেই। এটা জানার পরও ৪৫ দিনের দীর্ঘ টুর্নামেন্টের গ্রুপ পর্বে কোনো রিজার্ভ ডে রাখা হয়নি। শুধু সেমিফাইনাল ও ফাইনালে রিজার্ভ ডে রাখা হয়েছে। স্বভাবতই সমালোচনার মুখে পড়তে হচ্ছে আইসিসিকে। ব্রিস্টলে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচ পরিত্যক্ত হওয়ার পর বাংলাদেশ দলের প্রধান কোচ স্টিভ রোডসও আইসিসিকে একহাত নিয়েছেন, ‘আমরা চাঁদে মানুষ পাঠাতে পারি কিন্তু টুর্নামেন্টে রিজার্ভ ডে রাখতে পারি না।’

শুধু রোডস নন, একঝাঁক সাবেক ক্রিকেটার আইসিসির সমালোচনায় মুখ খুলেছেন। সাবেক ইংলিশ অধিনায়ক মাইকেল ভন সারা বিশ্বের ক্রিকেট ভক্ত-সমর্থকদের কাছে ক্ষমা পর্যন্ত চেয়েছেন, ‘বন্ধুরা। আমি ইংল্যান্ডের পক্ষ থেকে সবার কাছে ক্ষমা চাচ্ছি। এখানকার আবহাওয়া গত দুই দিন ধরে খুবই খারাপ। সারা দিন ধরে বৃষ্টি হচ্ছে। প্রচণ্ড ঠান্ডা। ব্রিস্টলে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়েছে। আশা করি সামনের দিনগুলোতে আবহাওয়া ভালো হবে।’

আইসিসি অবশ্য রিজার্ভ ডে না রাখার সিদ্ধান্তের পেছনে যুক্তি দেখিয়েছে। আইসিসির প্রধান নির্বাহী ডেভ রিচার্ডসন রিজার্ভ ডে না রাখার কারণ দেখাতে গিয়ে বলেছেন, ‘রিজার্ভ ডে রাখতে গেলে টুর্নামেন্টের দৈর্ঘ্য আরও বৃদ্ধি পাবে। বাস্তবতা চিন্তা করলে, রিজার্ভ ডে-সহ টুর্নামেন্ট আয়োজন কঠিন হয়ে যেত। এখানে ভেন্যু, উইকেট ঠিক থাকা, প্রস্তুত করা, ক্রিকেটারদের বিশ্রাম দেওয়াসহ আরও অনেক কিছু জড়িত। টিভি সম্প্রচারকদের জন্যও কাজটা কঠিন। আর রিজার্ভ ডে থাকলেই যে বৃষ্টি থেকে মুক্তি মিলবে, সেটাই বা কার জানা। প্রতি ম্যাচে ১ হাজার ২০০ জন মানুষ কাজ করে থাকে। রিজার্ভ ডে রাখা হলে আরও লোকবল বাড়াতে হবে।’