ঢাকা, সোমবার, ২৫ জুন ২০১৮, ১১ আষাঢ় ১৪২৬

‘ম্যারাডোনার সঙ্গে মেসির তুলনা বিশ্বকাপ জয়ের পর’

http://www.rtvonline.com/sports/43814/ম্যারাডোনার-সঙ্গে-মেসির-তুলনা-বিশ্বকাপ-জয়ের-পর
BYস্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন|  ১২ জুন ২০১৮, ১২:২৮ | আপডেট : ১২ জুন ২০১৮, ১২:৫৬

এমনিতেই লিওনেল মেসির ওপর চাপ কম নয়। দীর্ঘদিনের অধরা খেতাব জয়ের লক্ষ্যে আর্জেন্টাইন এই মহাতারকার দিকেই তাকিয়ে বিশ্বব্যাপী আকাশি-সাদার ভক্তরা। ২০১৪ সালে ব্রাজিলের মাটিতে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হবার খুব কাছে গিয়েও ফাইনালে গিয়ে হাত ফসকে যায়।

দুইদিন পরই শুরু হচ্ছে রাশিয়া বিশ্বকাপ। বিশ্বসেরার লড়াইয়ের একুশতম আসর শুরুর আগেই বার্সেলোনা তারকার ওপর চাপ আরও বাড়িয়ে দিলেন আন্দ্রে পির্লো। ইটালিয়ান কিংবদন্তি স্পষ্টই জানিয়ে দিলেন, মেসিকে ততদিন সর্বকালের সেরা ফুটবলার বলা যাবে না, যতদিন না পর্যন্ত দেশের হয়ে ও বিশ্বকাপ জিততে না পারছে।

বিগত দশক ধরে ম্যাজিক্যাল মেসি এবং ডিয়েগো ম্যারাডোনার তুলনা করে আসছে ভক্ত-সমর্থকরা। অনেক ফুটবল বিজ্ঞরা মেনেও নিয়েছেন মেসির থেকে অনেক গুণ এগিয়ে ম্যারাডোনা। বিশেষ করে একা একজন ফুটবলারও নিজের দক্ষতায় একটি দেশকে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন করতে পারে, তা দেখিয়ে দিয়েছিলেন ‘দ্য গোল্ডেন বয় খ্যাত’ এই তারকা।

১৯৮৬ সালে পর থেকে কখনই বিশেষ প্রশ্ন ওঠেনি ‘ফুটবল ঈশ্বর’ খ্যাত এই কিংবদন্তির শ্রেষ্ঠত্ব নিয়ে। পির্লোর মতে যতই পাঁচটি ব্যালেন ডি’ওর জিতুক বা বার্সার জার্সিতে একাধিক রেকর্ড ভাঙুক, ফুটবলের সব থেকে বড় সম্মান যতদিন না পর্যন্ত ও জিততে পারছে মেসিকে ততদিন সর্বকালের সেরার সঙ্গে তুলনা করা যাবে না।

সম্প্রতি এক সাক্ষাতকারে৩৯ বছর বয়সী পির্লো বলেন, মেসিকে সবসময় ম্যারাডোনার সঙ্গে তুলনা করা হয়কিন্তু ওকে বিশ্বকাপ জিততে হবে। কারণ বিশ্বকাপ না জিততে পারলে সব থেকে সেরা ফুটবলারের সঙ্গে তুলনা করা যায় না।

কয়েক দিন আগেই ফ্রেন্ডলি ম্যাচে স্পেনের কাছে মেসিহীন হোর্হে সাম্পাওয়ালির দল বিধ্বস্ত হয়েছে ৬-১ গোলে। বিশ্বকাপের আগে ইসরাইলের বিপক্ষে শেষ প্রস্তুতি ম্যাচও বাতিল হয়েছে। এখন মেসিদের সরাসরি নামতে হবে বিশ্বকাপে।

জুভেন্টাসের সাবেক এই তারকা বিশ্বাস করেন, মেসির কাছে বিশ্বকাপ জয়ের এটা সেরা সুযোগ। পির্লো বলেন, স্পেনের বিরুদ্ধে বড় ব্যবধানে হারলেও আমার মনে হয় রাশিয়া বিশ্বকাপে ভালোপারফর্ম করতে পারবে আর্জেন্টিনা। দলে একাধিক ভালোফুটবলার আছে। ওদের সেরা তারকারা যদি ভালোপারফর্ম করতে পারে ওর ভালোফল করবেই।

২০১৫ সালে পরিবার নিয়ে মেসির সঙ্গে দেখা করেন পির্লো, সেসময় বার্সা ফরোয়ার্ডকে‘সেরা’ দাবি করে ছবিটি ইনস্টাগ্রামেপোস্ট করেন কিংবদন্তি

ইটালির জার্সিতে মোট তিনটি বিশ্বকাপ খেলেছেন পির্লো। ২০০৬ বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন ইটালি দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। পির্লো শেষ বিশ্বকাপ খেলেন ২০১৪ সালে ব্রাজিলে।

যদিও ইতালি জন্য সেই স্মৃতি সুখের নয়। উরুগুয়ের কাছে ১-০ গোলে হেরে বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিতে হয়েছিল চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের। এদিকে চলতি বিশ্বকাপে কোয়ালিফাইয়ার রাউন্ড পার করতে পারেনি ইউরোপের দলটি।

ওয়াই/জেএইচ