ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৬

দুর্দান্ত শুরুর পরও হতাশার বিকেল

http://www.rtvonline.com/sports/46397/দুর্দান্ত-শুরুর-পরও-হতাশার-বিকেল
BYস্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন|  ১৩ জুলাই ২০১৮, ০৮:৫৭ | আপডেট : ১৩ জুলাই ২০১৮, ০৯:১৫

সকালটা ছিল দুর্দান্ত, মাঝখানে ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে বল হাতে নির্বিষ লড়াই আর দিন শেষে হতাশা নিয়ে প্রথম দিন শেষ করলো বাংলাদেশ।

দুই দলের একাদশে ছিল উল্টো বার্তা। তিনজন স্পিনার নিয়ে একাদশ সাজায় বাংলাদেশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজ বাদ দেয় আগের টেস্টে খেলা একমাত্র স্পিনারকেও। খেলা শুরুর পর দেখা গেল, উইকেট পড়তে খুব ভুল করেননি সাকিব। ম্যাচের প্রথম সকালেই মিলল বেশ টার্ন ও বাউন্স!

জ্যামাইকা টেস্টে টস হেরে ব্যাটিং করতে নেমে প্রথম দিন শেষে চার উইকেট হারিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ২৯৪ রান। অথচ দিনের প্রথম সেশনেই ২ উইকেট তুলে নিয়েছিল বাংলাদেশ। পরের দুই সেশনে বাংলাদেশের ঝুলিতে যোগ হয় একটি করে উইকেট।

জ্যামাইকার সকালটা স্পিনের ঝলকে ক্যারিবীয়দের নাড়িয়ে দিয়েছিল টাইগাররা। দলীয় ৯ রানে উদ্বোধনী জুটিতে ফাটল ধরান স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ। ওপেনার ডেভন স্মিথ মিরাজের বলে ফরোয়ার্ড ডিফেন্স করতে গিয়ে শর্ট লেগে ক্যাচ দেন মুমিনুলকে। ২২ বলে ২ রান করে আউট হন স্মিথ।

দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট কাইরন পোলার্ডকে নিয়ে ৫০ রানের জুটি গড়েন। এরপর আবারওমিরাজের আঘাত। ২৫তম ওভারে মিরাজের সোজা ডেলিভারি মিস করে এলবির ফাঁদে পড়েন পোলার্ড (২৯)। ২ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় ক্যারিবীয় শিবির। তবে সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে উইকেট সহজ হতে থাকে। ৩৫ ওভারে ২ উইকেটে ৭৯ রানে মধ্যাহ্ন বিরতিতে যায় ক্যারিবীয়রা। দ্বিতীয় সেশনে ফিরে আক্রমণে যায় তারা।

দলীয় ১৩৮ রানে তাইজুল ইসলামের বলে উইকেটরক্ষকের হাতে ধরা পড়েন শাই হোপ। বাঁহাতি স্পিনারের লাফিয়ে উঠা বল শাই হোপের ব্যাট ছুঁয়ে চলে যায় সিলি পয়েন্টে। কোনওফিল্ডার ছিল না সেখানে। কিপিং ছেড়ে বলের পিছু ছোটেন সোহান। সামনে ড্রাইভ দিয়ে বল তালুবন্দি করেন উইকেটরক্ষক। তার দুর্দান্ত ক্যাচে শাই হোপ ফেরেন ২৯ রানে। চা বিরতিতে যাওয়ার আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ছিল তিন উইকেট হারিয়ে ১৬৪ রান।

দিনের শেষ সেশনের সেঞ্চুরিয়ান ব্র্যাথওয়েটকে ফিরিয়ে স্বস্তি আনেন মিরাজ। ডানহাতি স্পিনারের ফুল ডেলিভারীতে স্লগ খেলতে গিয়ে মিড উইকেটে ক্যাচ দেন ব্র্যাথওয়েট। তাইজুল দারুণ ক্যাচ নিয়ে বাংলাদেশকে দেন সাফল্য। ২৭৯ বলে ১১০ রান করে আউট হন ব্র্যাথওয়েট। ক্যারিয়ারের এটি তার অষ্টম সেঞ্চুরি। ২০১৫ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছিলেন ব্র্যাথওয়েট।

ব্র্যাথওয়েটের বিদায়ের পর আগ্রাসন দেখান হেটমায়ার। দ্রুত রান তুলেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। তবে দিনের শেষ ওভারের প্রথম বলে হেটমায়ারকে ফেরানোর সুযোগ ছিল বাংলাদেশের। মাহমুদুল্লাহর বলে খানিকটা এগিয়ে এসে শট নিতে গিয়ে বল মিস করেন হেটমায়ার। বল লাফিয়ে সোহানের হাঁটুতে আঘাত করে। স্ট্যাম্পিংয়ের কঠিন সুযোগ হাতছাড়া করেন উইকেট রক্ষক। হেটমায়ার ৮৪ ও রোস্টন চেস ১৬ রানে অপরাজিত থেকে দিন শেষ করেছেন।

উল্লেখ, বাংলাদেশ প্রথম টেস্টে ইনিংস ও ২১৯ রানে হেরেছিল ক্যারিবীয়দের কাছে। তাই এ টেস্টে জয়লাভ করে নিজেদের আত্মবিশ্বাস ফিরে পেতে মরিয়া টাইগাররা।

এএ/জেএইচ