ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ জুলাই ২০১৮, ৪ শ্রাবণ ১৪২৬

সব হারিয়ে শ্রীলঙ্কা দিশেহারা!

http://news.zoombangla.com/সব-হারিয়ে-শ্রীলঙ্কা-দিশে/
July 12, 2018

দুই টেস্ট, পাঁচ ওয়ানডে আর এক টি-টোয়েন্টি খেলতে দক্ষিণ আফ্রিকা এখন শ্রীলঙ্কায়। গলে আজ শুরু হয়েছে প্রথম টেস্ট। তার আগেই শ্রীলঙ্কা দলে ওলট-পালট। শেষ রক্ষা হলো না কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়তেই হলো তাকে। শুধু হাতুরু নন, ম্যানেজার আশঙ্কা গুরুসিনহা আর অধিনায়ক দিনেশ চান্ডিমালকে অন্তত টেস্ট সিরিজে পাবে না শ্রীলঙ্কা। দুই ম্যাচের নিষেধাজ্ঞার খড়গ নেমে এসেছে তিনজনের ওপর। শাস্তি আরো বাড়তে পারে!

গল টেস্ট শুরুর মাত্র দশ ঘণ্টা আগে আইসিসি টুইট করে জানায় এই সিদ্ধান্তের কথা। ফলে শেষ মুহূর্তে শ্রীলঙ্কাকে বেশ কিছু অদলবদল আনতে হয়েছে। এর প্রভাবও হয়তো পড়েছে দলের খেলায়। গলের প্রথম দিনে ১৭৬ রান তুলতেই ৮ উইকেট হারিয়ে ফেলেছে শ্রীলঙ্কা। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত অধিনায়ক লাকমলকে নিয়ে দ্বিতীয় সেশন কাটিয়ে দিয়েছেন করুনারত্নে (১১৮*)। দলের সংগ্রহ ৮ উইকেটে ২১৪ রান।

শ্রীলঙ্কা আসলে গত সিরিজের জের টানছে। গত ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের দ্বিতীয় টেস্টের তৃতীয় দিনে ম্যাচ গড়াতে দেরি হয় দুই ঘণ্টা। ওই দিন ম্যাচ শুরুর ১০ মিনিট আগে দুই আম্পায়ার বল টেম্পারিংয়ের অভিযোগে জরিমানা করেন শ্রীলঙ্কা দলকে। ৫ রানের জরিমানার পাশাপাশি বল বদলানো হয়। এটা মানতে কিছুতেই রাজি ছিল না সফরকারী দলটি। তাদের বক্তব্য ছিল, এই শাস্তি অন্যায়। বল টেম্পারিং তারা করেনি। পুরো দল অধিনায়ক চান্ডিমালের পাশে গিয়ে দাঁড়ায়। মাঠে নেমেও পরে উঠে আসে। তাদের দাবি ছিল, ৫ রানের জরিমানা প্রত্যাহার করতে হবে, খেলা হবে পুরোনো বল দিয়েই।

কিন্তু আম্পায়াররা অটল থাকেন নিজেদের সিদ্ধান্তে। তাদের কাছে যথেষ্ট তথ্যপ্রমাণ আছে বলে জানায় আইসিসি। পরে শ্রীলঙ্কাও দোষ স্বীকার করে নেয়। তখন শাস্তিও পেতে হয় চান্ডিমালকে। সফরের শেষ টেস্ট খেলা হয়নি চান্ডিমালের।

তবে সেখানেই ঘটনা শেষ হয়ে যাবে না, তা বোঝা যাচ্ছিল। আইসিসির আচরণবিধিতে শ্রীলঙ্কা দলের মাঠে নামতে অস্বীকৃতি জানানো আরো গুরুতর অন্যায়। এরই বিচারপ্রক্রিয়া এখন চলছে। বিচারিক কমিশনার মাইকেল বেলফ শিগগিরই তার রায় জানাবেন। আরো বড় শাস্তি ধেয়ে আসছে অনুমান করতে পেরে শ্রীলঙ্কা দল শুরু থেকেই ব্যাপারটি মিটিয়ে নেয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

শ্রীলঙ্কা মেনে নিয়েছে, তারা আইসিসির আচরণবিধি অনুযায়ী ক্রিকেটীয় চেতনাবিরোধী তৃতীয় মাত্রার অপরাধ করেছে। বুধবার (১১ জুলাই) শ্রীলঙ্কার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টার দিকে মাইকেল বেলফের সামনে শুনানিতে হাজির হন ওই তিনজন। ৫ ঘণ্টার বেশি সময় ধরে চলে এই শুনানি। আপাতত তিনজনকে ৪ সাসপেনশন পয়েন্ট দেওয়া হয়েছে। যার সরাসরি শাস্তি দুই টেস্ট নিষিদ্ধ হওয়া। যেটি সর্বোচ্চ ৮ পয়েন্টও হয়ে যেতে পারে। সে ক্ষেত্রে প্রতি পয়েন্টের জন্য একটি করে ওয়ানডে ম্যাচেও নিষিদ্ধ হতে হবে। তাহলে তিনজনকে শ্রীলঙ্কা পরের ৫ ওয়ানডে সিরিজের চারটিতেই পাবে না।

শ্রীলঙ্কার পক্ষ থেকে চেষ্টা করা হচ্ছে শাস্তির মাত্রা যেন এতটা বেশি না হয়। আইসিসির আচরণবিধিতে আছে, শুনানিতে অপরাধ স্বীকার করে নিলে শাস্তির মাত্রা সর্বনিম্ন পর্যায়ে রাখার কথা বিবেচনা করতে পারেন। আইসিসি দ্রুতই জানিয়ে দেবে চূড়ান্ত রায়। এর মধ্যে টেস্ট চলার সময় চান্ডিমাল কেবল ড্রেসিংরুমে থাকতে পারবেন, মাঠে নামতে পারবেন না। আর হাথুরু ও গুরুসিনহা দুজন ড্রেসিংরুমেও থাকতে পারবেন না। দলকে কোনো দিকনির্দেশনা দিতে চাইলে বাইরে থেকে দিতে হবে। তবে দুই টেস্টের মাঝখানের সময়টায় কোচ ও ম্যানেজারের নিয়মিত কাজগুলো করতে বাধা থাকবে না। শ্রীলঙ্কা দলকে এই টেস্টে নেতৃত্ব দিচ্ছেন সুরঙ্গা লাকমল।

146SHARESShareTweet

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ই-মেইল থেকে